মালেশিয়ায় বৈধ প্রক্রিয়ায় হিমশিম খাচ্ছে বাংলাদেশ হাইকমিশন

মালেশিয়ায় অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসীদের বৈধ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হিমশিম খাচ্ছে সে দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন। প্রতিদিন প্রায় তিন থেকে চার হাজার কর্মী হাইকশিনে এসে ভীড় করছে। নতুন পাসপোর্টসহ অন্যান্য কাগজপত্রের জন্য আসছেন অভিবাসী কর্মীরা। 

মালেশিয়ার রাজধানী কুয়ালালাপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনের আশেপাসে সৃষ্টি হয়েছে বিশাল জটলা।অভিবাসীদের সারি প্রায় এক মাইল দীর্ঘ হওয়ায় আসেপাশের অফিস আদালতের সমস্যা হচ্ছে বলে দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে। 

প্রতিদিন প্রায় চার হাজার কর্মী হাইকমিশনে ভীড় জমালেও মাত্র এক হাজার কর্মীর সেবা দিতে পারছে হাইকমিশন।  

এরই মধ্যে হাইকমিশন ১৫ থেকে ২০ জন কর্মকর্তা চেয়ে সরকারের কাছে চিঠি দিয়েছে। এখনও কর্মকর্তারা সেদেশে পৌছতে পারেনি বলে জানা গেছে।

হাইকমিশনের এক কর্মকর্তা জানান, হাইকমিশনের আশেপাশে ভয়ঙ্কর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। হুড়োহুড়ি, খাওয়া দাওয়া এটা না দেখলে বিশ্বাস করা যায় ন।

কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনার শাহিদুল ইসলাম মাইগ্রেশন নিউজকে বলেন, প্রতিদিন প্রায় চার হাজার কর্মী হাইকমিশনে আসছেন।১,০০০ থেকে ১২০০ কর্মীর সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে। 

আমরা ১৪ থেকে ১৫ টি ওয়ার্ক স্টেশন করতে কর্মকর্তা চেয়েছি। আমরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। আশা করি সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

মালেশিয়ায় অবস্থিত বিদেশী কর্মীদের বৈধ করার প্রক্রিয়া শুরূ হয় ১৫ ফেব্রূয়ারী এবং এ প্রক্রিয়া চলবে ৩০ জুন পর্যন্ত।এর আগে মালেশিয়ার সরকার ৩১ ডিসেম্বর শেষ সময় বেঁধে দিলেও পরে তা ৩০ জুন আগিয়ে আনা হয়।মালেশিয়ার বিভিন্ন সূত্র মতে, প্রায় ২০ লাখ বিদেশী অনিয়মিত কর্মী সেদেশে অবস্থান করছেন। তবে বাংলাদেশী কত কর্মী অনিয়মিত আছে তা জানা যায়নি। তবে কেউ কেউ দাবি করে প্রায় ৩ লাখ অনিয়মিত বাংলাদেশী কর্মী সেদেশে আছে।    

মানি/র 

share this news to friends